মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব

 “ যাদের অনুপ্রেরণায় পৃথিবী এত সুন্দর

  

        মরহুম খান সাহেব মকবুল আলী চৌধুরী ইলিশিয়া জমিদার বাড়ির কৃতি সন্তান। তিনি মকবুলাবাদ ডাকঘরের প্রতি‌‌ষ্ঠাতা এবং পোষ্ট অফিসের নাম তাহার নামে নামকরণ করা হয়।ইলিশিয়া জমিলা বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতি‌‌ষ্ঠাতা করে তিনি উক্ত বিদ্যালয়ের জন্য ৯৯ একর জমি দান করেন। ইলিশিয়া জামে মসজিদের জন্য ১০০ একর জমি দান করেন। তিনি মোট ৮৫ টি বিদ্যালয়, মক্তব, মসজিদ ও মাদ্রাসার জন্য প্রায় ৫০০ একর এর উপরে জমি দান করেন। উনার শিক্ষানুরাগিতা ও প্রজাহিতৈষিতার জন্য ব্রিটিশ সরকার তাঁকে খান সাহেব উপাধিতে ভূষিত করেন। তার স্ত্রী জমিলা বেগম এর নামে তিনি ইলিশিয়া জমিলা বেগম উচ্চ বিদ্যালয় প্রতি‌‌‌ষ্ঠা করেন। মরহুম খান সাহেব মকবুল আলি চৌধুরীর বড় ছেলে মরহুম মোক্তার আহমদ চৌধুরী চিরিঙ্গা ইউনিয়ন বোর্ডের প্রেসিডেন্ট ছিলেন। তিনি মহিলা কবি বেগম সুফিয়া কামালের ননদ আয়েশা খানমের স্বামী ছিলেন। তিনি আলিগড় বিশ্ববিদ্যালে লেখাপড়া করেন। পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়ন পরিষদের জন্য তিনি ১৩০০ একর জমি দান করেন। খান সাহেব মকবুল আলি চৌধুরীর ৫ম পূত্র মরহুম মকছুদ আহমদ চৌধুরী দীর্ঘ ২৮ বছর বৃহত্তর বদরখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। মাতামুহুরী নদীর বিভিন্ন পয়েন্টে বাঁধ দিয়ে তিনিই প্রথম চকরিয়াতে বুরো ধান চাষের উদ্যোগ নেন।

 

        মরহুম খান সাহেব মকবুল আলি চৌধুরীর বড় ছেলে মরহুম মোক্তার আহমদ চৌধুরীর ৩য় পূত্র মরহুম খাইরুল ইসলাম চৌধুরী। তিনি আলিকদম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠক ছিলেন। তিনি দীর্ঘ একযুগ বৃটেন, ফ্রান্স ও জার্মানীতে অবস্থান করেন।

 

মরহুম ছিদ্দিক আহমদ (র) ছিলেন দরবেশ কাটা জমিদার বাড়ির সন্তান। তিনি ইসলামি শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে অত্র উপকূলীয় এলাকার মানুষের মাঝে দীন ইসলামের আলো ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য দরবেশ কাটা আহলিয়া বাহরুল মাদ্রাসা প্রতিষ্টা করেন। তিনি এলাকায় সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যাক্তি ছিলেন। 

ইলিশিয়া জমিদার বাড়ির কৃতিসন্তান মরহুম  খাইরুল ইসলাম চৌধুরীর সু-যোগ্য উত্তসূরি পশ্চিম বড় ভেওলা ইউনিয়ন পরিষদের দুইবার নিবার্চিত সফল চেয়ারম্যান, ইলিশিয়া জমিলা বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্মানিত শিক্ষক জনাব সিরাজুল  ইসলাম চৌধুরী । তিনি শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে স্বর্ণ পদক লাভ করেন। জনাব সিরাজুল  ইসলাম চৌধুরী সমগ্র মাতামুহুরী জনপদের জনপ্রিয় নেতা হিসাবে মানুষের ভাগ্যের উন্নয়নে কাজ করে আসছেন। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীগ মাতামুহুরী উপজেলা শাখার সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। যার অধিকাংশ সময় কেটেছে উপকূলীয় এলাকার মানুষের মধ্যে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে। তাই তিনি অনেক ধর্মীয় এবং প্রতিষ্টানিক শিক্ষা প্রতিষ্টান প্রতিষ্টা করেছেন এবং বিভিন্ন প্রতিষ্টানের অভিবাবক হিসাবে দায়িত্ব পালন করে  শিক্ষা বিস্তারে গুরুত্বপূর্ন  ভূমিকা পালন করেন। তাহার এমন অনেক ছাত্র-ছাত্রী আছে যারা দেশের বিভিন্ন বিভাগে গুরুত্বর্পূণ পদে সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করে এলাকার সুনাম বৃদ্ধি করে আসছে। 

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter